নগর ছাত্রলীগের গণ জমায়েত ও সমাবেশে নেতৃবৃন্দ দাবী আদায়ে আরও কঠোর আন্দোলন, প্রয়োজনে ঘেরাও কর্মসূচি

    0
    16

    রাউজানটাইমস ২৪ ডেস্ক :-

    BSL 1চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ চট্টগ্রাম কলেজ ও হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজের দুই অধ্য অপসারণ সহ সাধারণ শিার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে ছাত্রলীগের উত্থাপিত ৮দফা দাবী আদায়ে চলমান আন্দোলন কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ সকাল ১১ ঘটিকায় চট্টগ্রাম কলেজ ও হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজের সম্মুখ সড়কে ট্রাকে সজ্জিত অস্থায়ী মঞ্চে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
    গণ জমায়েত ও ছাত্র সমাবেশে সভপতিত্ব করেন নগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু। নগর ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুজন বর্মণ ও অমিতাভ চৌধুরী বাবুর যৌথ সঞ্চালনায় এ সময় বক্তব্য রাখেন নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি, সাবেক ছাত্রনেতা নূর মোস্তফা টিনু, পাভেল ইসলাম, নগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত কচি, আবদুল খালেক, রুমেল বড়ুয়া রাহুল, একরামুল হক রাসেল, আবু মো: আরিফ, মাঈনুল হাসান শিমুল, জয়নাল উদ্দিন জাহেদ, নাঈম রনি, এম কাইসার উদ্দিন, শাহীন মোল্লা, আমজাদ হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর, রনি মির্জা, গোলাম সামদানি জনি, সাংগঠনিক সম্পাদক খোরশেদ আলম মানিক, সাইফুল ইসলাম, আমির হামজা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্বের বক্তব্য রাখতে গিয়ে নগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু বলেন, “১ মাস অপো করেছি, শিার্থীদের নিরাপত্তায় কলেজের অধ্য মহোদয়ের কোন সাড়া না পেলেও তিনি প্রতিদিন শিবিরের নেতাদের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করছেন। দু’দিন আগে চট্টগ্রাম কলেজের অভ্যন্তরে রাতের আধারে তিনটি বোমার বিকট বিস্ফোরণ ঘটে। মহসিন কলেজ বিএনসিসি’র ক থেকে দুটি ডামি রাইফেল ও ৪৯ জোড়া বুট জুতা চুরি হয়। ঐ কলেজের এক শিক ছাত্রনেতা কাজী নাঈমকে মুঠোফোনে হত্যার হুমকি দেন। আর এত সব উদ্ভট পরিস্থিতির সম্পূর্ণ দায় কলেজ প্রশাসনের। এই দুই কলেজের জঙ্গীবাদ পৃৃষ্টপোষক হিসেবে চিহ্নিত কলেজ প্রশাসনের প্রত্য মদদে ও এ সকল ঘৃণ্যতম কাজ প্রতিদিন সংগঠিত হচ্ছে। আমরা এ সব ঘৃণ্য সন্ত্রাসী কাজের প্রতিবাদ জানাই। কলেজের দুই অধ্য ছাত্র শিবিরকে পুন: প্রতিষ্ঠা করে ছাত্র সংসদের টাকা লুট সহ অতীতের মত বিভিন্ন খাত থেকে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার প্রত্যাশায় সাধারণ শিার্থীদের আজ নিরাপত্তাহীনতায় ফেলেছেন। সুতরাং ছাত্রলীগ এই দুই কলেজের অধ্য অপসারণের দাবিতে রাজপথে নেমে এসেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা লালন করতে ছাত্রলীগ তার সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করতে প্রস্তুত”।
    এ সময় শিবির নেতাদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, চট্টগ্রাম কলেজ ও হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ ক্যাম্পাসে ফের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড সাধিত করলে তার পরিণাম প্রচণ্ড ভয়ানক হবে।
    সমাবেশে নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি বলেন, “ অহিংস কর্মসূচির মাধ্যমে সপ্তাহ জুড়ে আমরা দাবি আদায়ের চেষ্টা করেছি। আমরা আজ বুঝতে পারছি কলেজ প্রশাসন শিার্থীদের স্বার্থের কথা না ভেবে শিবিরের গোলামিতে মহা ব্যস্ত। তাই বাধ্য হয়েছি রাজপথে নেমে প্রতিবাদ জানাতে। এ বিশাল সংখ্যক ছাত্র সমাবেশের গণ দাবীকেও যদি কলেজ প্রশাসন অগ্রাহ্য করে তবে দুই অধ্যকে ঘেরাও করে দাবী আদায়ে প্রয়োজনীয় সবকিছু করবে বলে জানান এই ছাত্রনেতা।
    এ সময় তিনি নগর ১৪ দল, মুক্তিযোদ্ধা মহল সহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গকে ছাত্রলীগের আন্দোলনে একাত্মতা ঘোষণা করায় ধন্যবাদ জানান।
    দাবী সম্বলিত পোষ্টার, প্ল্যাকার্ড সজ্জিত গণ জমায়েত ও ছাত্র সমাবেশে এ সময় একাত্মতা ঘোষণা করেন নগর আওয়ামী লীগের সদস্য ফিরোজ আহমেদ, মো: ইউনুস, অমল মিত্র, বিএমএ নেতা শেখ শফিউল আজম, ওয়ার্ড কাউন্সিলর সৈয়্যদ গোলাম হায়দার মিন্টু, মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমেদ, পাল্টু লাল সাহা, চকবাজার থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো: সাহাবুদ্দিন, সদরঘাট থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মো: জাহাঙ্গীর, কোতোয়ালী থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হাসান মনসুর, ১৬নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আবদুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মোজাহেরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা গাজী জাফর উল্লাহ, নগর যুবলীগ নেতা নুরুল আনোয়ার, শিবু প্রসাদ চৌধুরী, দেলোয়ার হোসেন, আবদুল সালাম সুমন, মো: জাহেদ, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক উপ সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য যথাক্রমে আজিজুর রহমান, মো: ইলিয়াছ উদ্দিন, আব্দুর রহিম জিল্লু, ফরহাদ হোসেন রিন্টু, সহ সম্পাদক মেজবাহ উদ্দিন মোরশেদ, সদস্য আলী রেজা পিন্টু, আবু সাঈদ সুমন। এ সময় কর্মসূচিতে আরও উপস্থিত ছিলেন নগর ছাত্রলীগের সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য তপু বড়ুয়া, হাসানুল আলম চৌধুরী সবুজ, আক্তার হোসেন সৌরভ, মিয়া মোহাম্মদ জুলফিকার, হাসিব হাসান রুম্মান, ইমতিয়াজ আকবর, আবুল মনসুর টিটু, ওসমান গণি বাপ্পী, রিটন চৌধুরী রিংকু, উপ সম্পাদক আশরাফ উদ্দিন টিটু, সাইফুল ইসলাম রুবেল, তুষার ধর, শাহাদাত হোসেন বুলু, আবদুল আহাদ, অভিক দাশ গুপ্ত, কাজী মাহমুদুল হাসান রনি, মিজানুর রহমান মিজান, সহ সম্পাদক নাদিম উদ্দিন, আবদুল মান্নান রুবেল, আজিজুর রহমান আজিজ, শেখর দাশ, সাব্বির সাকির, এহসানুল কবির ববি, সদস্য কামরুল হুদা পাভেল, আরাফাত রুবেল, সালাউদ্দিন বাবু, আসিফ খান আরাফাত, ফাহাদ আজিজ, মিজানুর রহমান মিজান, মোস্তফা কামাল, বোরহান উদ্দিন গিফারী, আল মামুন জুয়েল, ফরহাদ সাঈম, ফয়সাল অভি, নাজমুল হাসান, জিসান, সাজ্জাদ হোসেন প্রমুখ।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here