৫৫ বছর ধরে মাহফিল, জুলুসে অট্টই বিতরন শামশু মিস্ত্রির

    0
    12

    নিজস্ব প্রতিবেদক ঃ
    20160213_162917বিত্তশালীরা নানাভাবে সাহায্যে করে গরীব মানুষদের। আবার অনেকের অর্থ থাকলেও সাহায্যে করার মন থাকেনা। এক্ষেত্রে সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম রাউজান পৌরসভার গহিরা ৩নং ওয়ার্ডের ৬৮ বছর বয়সী শামশু মিস্ত্রি। তিনি সাধারন একজন মানুষ। এই বৃদ্ধ বয়সেও তিনি ৫৫ বছর ধরে ঈদে মিলাদুন্নবীর জুলুস, ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও ঈদে মিলাদুন্নবীর মাসজুড়ে মাহফিলে আগত মুসলিমদের হরিতকি (অট্টই), আঙ্গুর, কোরমা বিলি করে আসছেন।
    পরকালে নাজাত পাওয়ার আশায় ও মায়ের পরামর্শে তিনি ছোটকাল থেকে এই কাজটি করে আসছেন। আজীবন তিনি এই হরিতকি (অট্টই), আঙ্গুর, কোরমা বিলি করে আসার আশা প্রকাশ করেছেন। গহিরার আবদুর রহিমের বাড়ীর মৃত নুর মোহাম্মদ মিস্ত্রির ছেলে শামশুকে  শনিবার বিকালে গহিরা এফ. কে. জামেউল উলূম বহুমুখী কামিল (এম.এ) মাদরাসার ৭৯ তম বার্ষিক সভা ও পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (স.)’র অনুষ্ঠানে অট্টই আগত অতিথি, মহিলা ও ছাত্র-ছাত্রীদের বিলি করতে দেখা। এসময়ে বৃদ্ধ শামশু মিস্ত্রির কাছে অট্টই বিলি করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন ‘৫৫ বছর ধরে চট্টগ্রামের জামেয়া আহম্মদিয়া সুন্নিয়া মাদরাসার সভায় ও ঈদে মিলাদুনবীর জুলুসে, মাইজভান্ডার দরবার শরীফের ওরশ ও বিশেষ করে রাউজানের বিভিন্নস্থানে ঈদে মিলাদুন্নবীর মাসে মাহফিলে অট্টই, কোন কোন সময় আঙ্গুর, কোরমা তাবরুক হিসেবে বিলি করে আসছি।’ উদ্যোশে সম্পর্কে বলেন আমার মা তম্বিয়া খাতুন আমাকে বলেছিলেন আমাকে জীবিত অবস্থায় নির্দেশ দিয়েছে মানবকল্যানে কাজ করার জন্য। তিনি বলতেন এক টাকা দান করলে লাখ টাকা হবে। তাছাড়া আমি নবী (স.) ভালবাসি, তিনি আমাকে এই ভালো কাজের জন্যে দোযখ থেকে টেনে তুলবেন। ব্যক্তি জীবনে একসময় কার্পেন্টার মিস্ত্রি ছিলেন শামশু। এখন তিনি কোন কর্ম করতে পারেননা। অট্টই তথা তাবরুক বিলি করার টাকার জোগান কিভাবে হয় এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন গহিরা চৌমুহনী আমার কয়েকটি দোকান রয়েছে। এই দোকান ভাড়া দিয়ে মাসে ১৫ হাজার টাকা আসে। ওই টাকা থেকে এই এসবের খরচ করি। তিনি বলেন প্রথমে কাঁচা অট্টই কিনে শুকিয়ে রাখি। তারপর ঈদে মিলাদুন্নবী আসলে এসব বিলি করি। এ প্রসঙ্গে প্রতিবেশী আলমগীর চৌধুরী ও রাউজান উপজেলা কেন্দ্রীয় মসজিদের হাফেজ মো. দানেশ বলেন শামশুকে বহু বছর থেকে হট্টই বিলি করতে দেখে আসছি। তিনি একজন ভালো মানুষ। উল্লেখ্য যে, বৃদ্ধ শামসু ব্যক্তি জীবনে তিন ছেলে ও এক মেয়ের জনক।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here