কালবৈশাখী ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি রাউজানে, উড়ে গেছে কাঁচাঘরের টিনের চাল

    0
    22

    জাহেদুল আলম :-

    raozan-pic-gac-708x525গত বৃহস্পতিবার রাতের ঝড়ে রাউজানে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বহু কাঁচা বসতঘর ভেঙে গেছে। বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে পড়ায় এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে। বিশেষ করে সবজি ক্ষেতের বেশ ক্ষতি হয়েছে।  বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় হঠাৎ টর্নেডো, শিলা বৃষ্টিতে রাউজানের প্রায় সব এলাকায় গাছপালা, বিদ্যুৎ খুঁটি ভেঙে গেছে। অনেক এলাকায় সাধারণ মানুষের কাঁচাঘরের টিনের ছাল উড়ে গেছে। ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বাঙ্গি, তরমুজ ও সবজি ক্ষেতের। উপজেলার ১৪ ইউনিয়ন ও পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপকভাবে বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে পড়ায় এবং তার ছিঁড়ে যাওয়ায় প্রায় সব এলাকায় বিদ্যুৎ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে অবস্থা এতই মারাত্মক যে, ওইসব এলাকায় শনিবার ছাড়া বিদ্যুৎ সংযোগ চালু সম্ভব নয়। নোয়াজিষপুর এলাকার জালান উদ্দিন নামের এক শিক্ষক জানান, নোয়াজিষপুর, গহিরা, চিকদাইর ইউনিয়নের কমপক্ষে শতাধিক ছোট বড় গাছ ভেঙে বিভিন্ন সড়কের উপর পড়ে। এতে রাতে যানবাহন চলাচল বিঘœ সৃষ্টি হয়। চিকদাইরে শনিবার দুপুরেও অনেক বড় গাছ সড়কে পড়ে থাকতে দেখা যায়। গহিরার বাসিন্দা মো. আসিফ, নুরুল আমিন জানান, টর্নেডোর আঘাতে এলাকার ঘরবাড়ি, গাছপালা, বিদ্যুতের খুঁটির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
    রাউজান পৌরসভার বাসিন্দা উজ্জ্বল চক্রবর্তী জানান, রাউজান পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় গাছপালা ও বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে যায়। এমনকি সড়কে সিএনজি অটো ট্যাক্সিও গাছ পড়ে ভেঙে যায়।
    এদিকে রাউজান নোয়াপাড়া সেকশান-১,২, হাফেজ বজলুর রহমান সড়ক, রাঙামাটি সড়ক, মাওলানা দোস্ত মোহাম্মদ সড়ক, শহীদ জাফর সড়কসহ উপজেলার বিভিন্ন সড়কের উপর ভাঙা গাছ পড়ে যান চলাচল বিঘœ সৃষ্টি হয়। চট্টগ্রাম পলী বিদ্যুৎ সমিতি-২ (রাউজান) সদরের ম্যানেজার আবু বক্কর সিদ্দিকী বলেন ‘ঘূর্ণিঝড়ে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ২৫টি বিদ্যুতে খুঁটি ভেঙে গেছে। এরমধ্যে গহিরা ইউনিয়নেই ভেঙে গেছে ১৭টি বিদ্যুৎ খুঁটি। এছাড়া প্রায় প্রত্যক এলাকায় বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে গেছে অস্বাভাবিকহারে। এর ফলে সব এলাকায় বিদ্যুৎ বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। তবে আমরা চেষ্টা চালিয়ে শনিবার সকাল থেকে বিভিন্ন এলাকায় পর্যায়ক্রমে বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করেছি। সন্ধ্যা নাগাদ আমরা ৭০-৮০ শতাংশ এলাকায় বিদ্যুৎ চালু করতে সক্ষম হয়েছি। তবে গহিরা, নোয়াজিষপুরসহ অধিক ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায় এখনো বিদ্যুৎ চালু সম্ভব হয়নি। সেসব এলাকায় শনিবার বিদ্যুতের লাইন চালু করার আশা করছি।’
    এদিকে শিলা বৃষ্টিতে রাউজান পৌরসভার কু-েশ্বরী, সুলতানপুর, চিকদাইরসহ বিভিন্ন এলাকায় বাঙ্গি তরমুজ ও বিভিন্ন এলাকায় ফসলি ক্ষেতের ক্ষতি হয়েছে। উলেখ্য যে, উপজেলার গহিরা, নোয়াজিষপুর, চিকদাইর, ডাবুয়া, হলদিয়া, রাউজান, পূর্ব গুজরা, পশ্চিম গুজরা, উরকিরচর, পাহাড়তলী, বাগোয়ান, কদলপুর, বিনাজুরীসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে টর্নেডোর আঘাতে ক্ষতি হয়।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here