রাউজানে সড়ক দূর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে-৪

    0
    27

    এস.এম. ইউসুফ উদ্দিন :-

    রাউজানে পৃথক দুই স্থানে সড়ক দূর্ঘটনায় ৪জন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে এক দুবাই প্রবাসি, একজন স্বর্ণ দোকান কর্মচারী, এক অটোরিক্সার চালক। অপরজন মোটর সাইকেল আরোহী ছিল। গত মঙ্গলবার রাতে ও  বুধবার বেলা ২টার দিকে পৃথক ঘটনা দুটি ঘটে কাপ্তাই সড়কের বদুপাড়া ও রাঙ্গমাটি সড়কের ফকির তকিয়া নামক জায়গায়। কাপ্তাই সড়কে ট্রাক চাপায় নিহত হয় অটোরিক্সার যাত্রী প্রবাস ফেরত জসিম উদ্দিন (৪৫) ও রতন ধর (৫০) ও অটোরিক্সাচালক মোহাম্মদ ইলিয়াছ (২৬)। এ ঘটনায় অটোরিক্সারোহী পল্লী বিদ্যুতের প্রকৌলীসহ ২ জন গুরুতর আহত হয়েছে। কাপ্তাই গামী ট্রাকটির ধাক্কায় অটোরিক্সাটি ধুমড়ে মুছড়ে যায়। স্থানীয়রা পালিয়ে যাওয়ার সময় ঘাতক ট্রাকটি আটক করতে সম হলেও চালক লাপাত্তা হয়ে যায়।
    গতকাল বুধবার বেলা ২টার দিকে ট্রাক চাপায় অটোরিক্সা দূর্ঘটনাটি ঘটে উপজেলার পাহাড়তলী ইউনিয়নের বদুপাড়ার কাছে করের বাড়ীর সামনে। অপর ঘটনাটি ঘটে গত মঙ্গলবার রাতে রাঙ্গামাটির সড়কের ফকির তকিয়া নামক স্থানে। এখানে মোটর সাইকেল আরোহী মোহাম্মদ হোসেন নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা লেগে ঘটনাস্থলে প্রাণ হারান। অপর দুই আরোহী গুরুতর আহত হয়।
    বুধবার বেলা ২টার দিকে সংঘঠিত সড়ক দূর্ঘটনায় আহতদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশঙ্খজনক হওয়ায় তাদের প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও পরে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সেখানে অটোরিক্সাচালক মোহাম্মদ ইলিয়াছের মৃত্যু হয়।
    রাউজান থানার ওসি কেপায়াত উল্লাহ এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন পৃথক এ র্দূঘটনায় ঘটনাস্থলেই তিনজন মারা যায়। পরে একজন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা যায়।Raozan accident pic
    থানীয় প্রত্যদর্শী সূত্রে জানাগেছে, বুধবার বেলা ২ টার দিকে উপজেলার কাপ্তাই সড়কের বদুপাড়ার কাছে রেজিষ্ট্রেশন বিহীন একটি ট্রাক (চট্টমেট্টো-ট-০১১) সিএনজি অটোরিক্সাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান উপজেলার পূর্ব গুজরা ইউনিয়নের আব্বাস চেয়ারম্যানের বাড়ীর হাজী সিদ্দিক আহমেদের দুবাই ফেরত পুত্র জসিম উদ্দিন (৪৫) ও রাঙ্গুনীয়ার পশ্চিম কদমতলী বণিক পাড়ার সুরঞ্জণ ধরের পুত্র রতন ধর (৫০)। নিহত জসিম দুই ছেলে সন্তানের জনক। নিহত জসিম উদ্দিনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে নোয়াপাড়া পথেরহাট পাইওনিয়ার হাসপাতালে নিয়ে এলে লাশ দেখে তার বৃদ্ধ বাবা হাজী সিদ্দিক আহমেদ ও মা বার বার জ্ঞান হারান। এ সময় পাইওনিয়ার হাসপাতালে এক হ্রদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা ঘটে।
    এ ঘটনায় আহত চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুত সমিতি-২ আওতাধিন নোয়াপাড়া জোনাল অফিসের সহকারী প্রকৌশলী মোহাম্মদ ইলিয়াছ (৪০)ও অটোরিক্সার ড্রাইভার মোহাম্মদ ইলিয়াছকে (২৬) স্থানীয়রা উদ্ধার করে স্থানীয় কসমিক হাসপাতালে নিয়ে আসেন। তাদের অবস্থা অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় চট্টগ্রাম মেডিকেলে পাঠানো হয়। প্রকৌশলী ইলিয়াছের গ্রামের বাড়ী পটিয়া ও নিহত অটোরিক্সা চালক মোহাম্মদ ইলিয়াছের বাড়ী রাঙ্গুনীয়া উপজেলায় বলে জানাগেছে। নিহত জসিম গত ৪ মাস আগে দুবাই থেকে দেশে বেড়াতে এসে বুধবার দুপুরে ফের দুবাই ফিরে যাওয়ার জন্য বিমান টিকেট করতে ট্রাভেল অফিসে যাওয়ার পথে দূর্ঘটনায় প্রাণ হারান।
    স্থানীয়া মনে করেন, যত্রতত্র ফিটনেস বিহীন গাড়ী ও লাইসেন্সবিহীন অদ গাড়ী চালকের কারণেই এভাবে প্রতিদিন সড়ক দূর্ঘটনায় ঝড়ে পড়ছে তাজা তাজা প্রাণ। সচেতন মহলের জোরালো দাবী এসব ফিটনেস বিহীন গাড়ী ও অদ চালকের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে তা বন্ধ করা হোক। তাহলে সড়ক দূর্ঘটনায় মৃত্যুর মিছিল অনেকটা থেমে আসবে।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here