নোয়াপাড়ার গৃহবধূ এ্যানির মৃত্যুর ঘটনা : স্বামী নাছিরকে গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান

    0
    7

    এস.এম. ইউসুফ উদ্দিন  :-
    রাউজানের নোয়াপাড়ার ছামিদর কোয়াং গ্রামের গৃহবধু এ্যানি আকতারের (১৮) মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে ও এ্যানির স্বামী নাছিরকে আটক করতে গত রবিবার দুপুরে তার বাড়ীতে পুলিশ অভিযান চালিয়েছে। কিন্তু নাছির পালাতক থাকায় তার খোঁজ পাইনি পুলিশ।

    তবে নাছিরের মার সাথে কথা বলে পুলিশ নানা তথ্য সংগ্রহ করেন। নোয়াপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ টুটন মজুমদার বলেন, বাবা বাদশা মিয়ার দেওয়া ছেলে নাছিরের বিরুদ্ধে স্ত্রী নির্যাতন ও পরকীয়ার অভিযোগের প্রেেিত আমরা নাছিরকে ধরতে তার বাড়ীতে অভিযান চালায়। কিন্তু তাকে পাওয়া যায়নি।

    তিনি আরো জানান, নাছিরের বাবার দেওয়া অভিযোগের ১ নং আসামী ওই পরকীয়া প্রেমিকার বাসায়ও কাউকে পাওয়া যায়নি। পেলে তাকে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞসাবাদ করা হবে।

    Raozan news pic
    উল্লেখ্য পরকীয়ায় আসক্ত স্বামীর অবহেলা ও অত্যাচারী অতিষ্ঠ হয়ে  বাপের বাড়ী কাপ্তাই রাস্তার মাথা গোলাফের দোকানের নুর মোহাম্মদ সওদাগরের বাড়ীতে গত ১০ মে গৃহবধূ এ্যানি ঘুমের ২০ টি ঔষধ খেয়ে ফেলে। পরে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে এ্যানি।

    এদিকে এ্যানি মারা যাওয়ার একদিন আগে পূত্রবধুকে নির্যাতন ও পরকীয়া প্রেমে আসক্ত নিজ পুত্র এ্যানির স্বামী নাছিরের বিরুদ্ধে তার পিতা বাদশা মিয়া বাদী হয়ে রাউজান থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করেছিল।
    এলাকাবাসি সূত্রে জানাগেছে, রাউজান উপজেলার নোয়াপাড়া ইউনিয়নের ছামিদর কোয়াং গ্রামের আজিম ফকিরের বাড়ীর ওমান প্রবাসি বাদশা মিয়ার ২য় পূত্র মোহাম্মদ নাছির (২৭) এর সাথে গত দুই বছর পূর্বে সামাজিকভাবে বিয়ে হয় কাপ্তাই রাস্তার মাথার ধুপপুল গোলাপের দোকান নুর মোহাম্মদ সওদাগরের বাড়ীর মনসুর আলমের কন্যা এ্যানি আকতারের।

    বিয়ের পর থেকে স্বামী নাছির নববধু এ্যানি আকতার (১৮) কে নানা ভাবে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন করে আসতো।
    ঘটনা তদন্তে সরেজমিন গেলে স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ তাদের দুই বছরের ঘর সংসারে প্রায় সময় নাছির বাইরে রাত যাপন করে স্ত্রী এ্যানিকে মানসিক যন্ত্রণা দিতো।
    স্থানীয়দের মতে এসব পরকীয়া প্রেমের কারনে আরো অনেক সংসার নষ্ট হতে পারে। তাই এর প্রতিরোধে সমাজের সচেতন মানুষদের এগিয়ে আসতে হবে। না হয় পুরো সমাজ এসব অনৈতিক কাজে জড়িয়ে সংসারে অশান্তি সৃষ্টি করবে। জরে পড়বে এ্যানির মত আরো অনেক অসহায় নারীর জীবন।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here