হালদায় ডিম সংগ্রহের অপেক্ষা

    0
    4

    মো. সোহেল রানা :-

    দেশের একমাত্র প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন ক্ষেত্র হালদা নদীতে ডিম সংগ্রহের অপেক্ষায় আহরণকারীরা। বুধবার রাতে বৃষ্টির মধ্যে নমুনা ডিম ছাড়ে মা মাছ। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। পূর্ণিমার প্রভাবে আকাশও মেঘলা। ফলে বৃহস্পতিবার যে কোন সময় ডিম ছাড়তে পারে মা মাছ।  বুধবার রাতে নমুনা ডিম ছাড়ার পর থেকেই সরঞ্জাম নিয়ে হালদা নদীর বিভিন্ন অংশে অবস্থান নিয়েছেন আহরণকারীরা। ডিমের অপেক্ষায় শত শত মৎস্যজীবী নৌকা জাল নিয়ে নোঙ্গর করেছে।

    13241323_966997890074450_1033322924898043171_nআহরণকারীদের ধারণা, আকাশের কালো মেঘের আনাগোনায় ভারি বৃষ্টি হতে পারে। পূর্ণিমার প্রভাবে সৃষ্ট এই পরিবেশে মা মাছ যে কোনো সময় ডিম দেবে। এদিকে অনেকেই ডিম থেকে পোনা রূপান্তরের জন্য আগে থেকেই প্রস্তুত রেখেছেন মাটির চৌবাচ্চাগুলো। তবে ডিম দেওয়ার এ সম্ভাবনার মাঝেও প্রস্তুতি দেখা যায়নি মৎস্য বিভাগের হ্যাচারিগুলোতে। যে উদ্দেশ্য নিয়ে হ্যাচারি প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল সেগুলো থেকে এই পর্যন্ত কাঙ্ক্ষিত সুফল না পেয়ে মৎস্যজীবীরা হতাশ।

    চট্টগ্রামের রাউজান-হাটহাজারী উপজেলা সীমানা দিয়ে বয়ে যাওয়া হালদা নদীতে প্রতি বছর চৈত্র থেকে আষাঢ় মাসে ডিম ছাড়ে মা মাছ। কৃত্রিম পোনার চেয়ে হালদার পোনা বাড়ে বলে এ পোনার কদর রয়েছে সারা দেশে। পোনা ব্যবসায়ীরা স্থানীয়ভাবে হ্যাচারি তৈরি করে অপেক্ষায় থাকেন, মা মাছ কখন ডিম ছাড়বে সে আশায়। হালদা পাড়ের লোকজন জানিয়েছেন, এই মৌসুমে রাউজান ও হাটহাজারী এলাকার দুই শতাধিক মৎস্যজীবী ডিম সংগ্রহের প্রস্তুতি নিয়েছেন।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here