চবি ছাত্রসেনার ইফতার মাহফিলে জননেতা এম এ মান্নান -আজ নিরাপত্তা বাহিনীও নিরাপদ নয়

    0
    46

    রাউজানটাইমস ডেস্ক :-13453854_1045169058912948_1558952948_n

    বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের চেয়ারম্যান জননেতা এম এ মান্নান বলেন, রাব্বুল আলামিনের অনন্য নিয়ামত সিয়াম সাধনা। রোজা মানুষকে মুমিনে কামেলে পরিণত। রমজান মাসে পণ্যদ্রব্যের কৃত্রিম অভাব সৃষ্টিকারী অসাধু ব্যবসায়ীদের কঠোর সমালোচনা করেন তিনি। বাজার দর সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখতে সরকারের কার্যকরী পদক্ষেপ কামনা করেন তিনি। এম এ মান্নান আরও বলেন, আজ যেখানে নিরাপত্তা বাহিনীর পরিবার নিরাপদ নয় সেখানে সাধারণ জনগণের নিরাপত্তা কোথায়? সরকার ঘটে যাওয়া প্রতিনিয়ত জঙ্গি গুপ্তহত্যাকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা বলে উড়িয়ে দিয়ে সাধারণ জনগণকে নিরাপত্তার বিপরীতে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিচ্ছে। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া পুলিশ সুপার বাবুল আকতারের স্ত্রী মিতু হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ইসলামী ফ্রন্টের চেয়ারম্যান জননেতা এম এ মান্নান। চবি সভাপতি আলী আকবর বিশ্ব দরবারে সমালোচিত জঙ্গি সংগঠন হিসাবে চিহ্নিত ছাত্রশিবির দ্বারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা দীপ্ত ছাত্রসংগঠন বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনার ৩ যুগেরও বেশী সময়ের কলংকমুক্ত ইতিহাসকে বিকৃত করার ষড়যন্ত্রের তীব্রনিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। গত ১০ জুন জুমাবার বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইফতার মাহফিল ও প্রীতি সমাবেশ সংগঠনের সভাপতি ছাত্রনেতা আলী আকবরের সভাপতিত্বে এবং জয়েন্ট সেক্রেটারি এম সাইফুল ইসলাম নেজামীর সঞ্চালনায় চট্টগ্রাম নগরের বহদ্দারহাটস্থ হোটেল কাশবনের অডিটোরিয়ামে অত্যন্ত জাঁকজমকপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চবি ছাত্রসেনার সাবেক বর্তমান সমন্বয় পরিষদের আহবায়ক অধ্যাপক নাজিমুল হক। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক মুহাম্মদ ইদ্রিস ও সচিব নুর মুহাম্মদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন ইসলামী ফ্রন্টের যুগ্ম-মহাসচিব জননেতা স.উ.ম আব্দুস সামাদ, ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় নেতা প্রকৌশলী আমান উল্লাহ, প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান। নগর উত্তর ফ্রন্টের সহ সাধারণ সম্পাদক সফিউল আলম, যুবসেনা নগর সহ সভাপতি জসিম উদ্দিন, চবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক রাহাত। উদ্বোধক ছিলেন ইসলামী ফ্রন্টের চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সচিব মজলুম জননেতা কাজী সোলায়মান চৌধুরী। প্রধান বক্তা ছিলেন ছাত্রসেনার কেন্দ্রীয় সহ – সাংগঠনিক সম্পাদক ছাত্রনেতা এইচ এম শহীদুল্লাহ। চবি ছাত্রসেনার সার্বিক কার্যক্রম নিয়ে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক দিদারুল ইসলাম কাদেরী। চবির সাবেক সেনা নেতাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ বদিউল আলম রেজভী, অধ্যাপক আহমদ শাহ আলমগীর, মাওলানা হাসান মুরাদ কাদেরী, এডভোকেট দিদারে আলাম, রাশেদুল হাসান মুরাদ, সৈয়দ মঞ্জুর মুর্শেদ, শরিফুল ইসলাম চৌধুরী, ফয়সাল করিম চৌধুরী, শাহাদাত হোসাইন তানভীর, আব্দুল হামিদ, রেজাউল করিম। জেলা নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ জেলা ছাত্রসেনার সভাপতি নিজামুল করিম সুজন, চট্টগ্রাম মহানগর উত্তর সভাপতি ফরিদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা সাধারণ সম্পাদক সরোয়ার উদ্দিন চৌধুরী, মহানগর উত্তর সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের রুবেল, উত্তর জেলা ছাত্রসেনার সাংগঠনিক সম্পাদক মফিজুর রহমান, মুহাম্মদ নাজিমুদ্দিন খাঁন, আঞ্জুমানে রজভীয়া নুরীয়ার জয়েন্ট সেক্রেটারি ফরিদুল আলম, মাছুমুর রশিদ কাদেরী, এনামুল হক এনাম, আরমান হোসাইন। চবি সেনা নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সহ সভাপতি মোদাচ্ছের হোসাইন চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক হেলাল উদ্দিন চৌধুরী, তানভিরুল ইসলাম, মামুনুর রশিদ, এস এম ইকরাম হোসাইন, শেখ মনিরুল ইসলাম, নাঈম উদ্দিন,আব্দুল করিম, সফিউল আলম, নেজাম উদ্দিন, শাহিনুর আলম, আবু নাহিয়ান, মিছহাব উদ্দিন, আল জাবের প্রমুখ।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here