প্রত্যেক মানুষের সরকারি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের তথ্য জানার অধিকার আছে

    0
    8

    নিজস্ব প্রতিবেদক। রাউজানটাইমস ডেস্ক 

    সোমবার (২২ আগস্ট) সীতাকুণ্ড জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে দুর্নীতি দমন কমিশনের গণশুনানি অনুষ্ঠানে দুদক কমিশনার ড. নাসির উদ্দীন আহমেদ বলেছেন, সরকারি পদে থেকে আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখানো হলে দুদক বসে থাকবে না বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন । জনগণের সাংবিধানিক অধিকার হরণে হাতেগোনা কয়েকজন দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তার দায়ভার পুরো দেশ নিতে পারে না। সরকারি পদে থেকে আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখাবেন তা হবে না। আমরাও বসে থাকবো না। দুর্নীতি দমন কমিশন চট্টগ্রাম-২, সীতাকুণ্ড উপজেলা প্রশাসন ও সীতাকুণ্ড উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ Sitakunda-ACC-News--22-Augu20160822171454কমিটি যৌথভাবে এ গণশুনানির আয়োজন করে। প্রধান অতিথির বক্তব্যে দুদক কমিশনার বলেন, সরকারি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে সেবা পাওয়া নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার। প্রত্যেক মানুষের সরকারি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের তথ্য জানার অধিকার আছে। প্রত্যেকটি সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে।

    তিনি বলেন, মানুষের সেবা ও অধিকার নিশ্চিত করতে হবে।  জনাসাধারণ একটু সচেতন হলেই দুর্নীতির হার কমে যাবে।  সমাজের সকল মানুষকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। সীতাকুণ্ডকে দুর্নীতি প্রতিরোধের মডেল উপজেলায় উন্নীত করতে হবে।

    ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ড. অনুপম সাহার সভাপতিত্বে গণশুনানিতে বক্তব্য রাখেন দুদক কমিশনার এ এফ এম আমিনুল ইসলাম, দুদক পরিচালক মো. মনিরুজ্জমান, বিভাগীয় পরিচালক আবদুল আজিজ ভুঁইয়া, উপ-পরিচালক সৈয়দ আহমেদ, মোশাররফ হোসেন, সীতাকুণ্ড উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস এম আবদুল্লাহ আল মামুন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল ইসলাম ভূঁইয়া পৌর মেয়র বদিউল আলম, ইউপি চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম, মোরশেদ ইসলাম চৌধুরী, সীতাকুণ্ড উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি অধ্যাপক এস এম ইকবাল, সাধারণ সম্পাদক মো. মাহাবুবর রহমান ও পৌর কমিশনার হারাধন চৌধুরী বাবু প্রমূখ।

    দুদুক কমিশনার এ এফ এম আমিনুল ইসলাম বলেন, দুর্নীতি প্রতিরোধ করতে হলে প্রত্যন্ত এলাকা থেকে সাধারণ জনগণকে এগিয়ে আসতে হবে। যেখানে জনগণের সম্পৃক্ততা থাকবে না সেখানে দুর্নীতির মাত্রা বেশি থাকবে।

    গণশুনানিতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মেজবাউল আলম. সহকারী কমিশনার (ভুমি) মো. রুহুল আমিন, পল্লী বিদ্যুতের জিএম এটিএম সামশুল ইসলাম চৌধুরী, সাব-রেজিস্ট্রার মো. সিরাজুল করিম, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা পরান্টু চাকমা বিভিন্ন অভিযোগের জবাব দেন।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here