বাংলাদেশ-ইংল্যান্ডকাল ওয়ানডে সিরিজ শুরু কাল

    0
    5

    রাউজানটাইমস ২৪ ডেস্ক :-

    নাসির হোসাইন, বাংলাদেশ ক্রিকেটে তাকে বলা হয় দ্য ফিনিশার। অবশ্য গত প্রায় একটা বছর দলে থাকলেও একাদশে মুখদর্শন তার সামান্যই। এই নাসির আবার খুব আমুদে স্বভাবের। প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানরা প্রায়ই বিস্মিত হন ক্রিজে তাকে দেখে। কারণ নাসির যখন ব্যাটিং করেন তখন সারাক্ষণ গুনগুনিয়ে কখনো আবার উচ্চস্বরে গান করেন। আসলেই মজার। এই নাসির বাংলাদেশ যখন তাদের সর্বশেষ ম্যাচে বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকে বধ করেছিল তখন দলে ছিলেন না, ছিলেন মাইক্রোফোন হাতে ধারাভাষ্যে। সেই ম্যাচের একেবারে শেষক্ষণে ধারাভাষ্যে নাসির বলেন, ‘বাংলাদেশ টাইগার্স নক্টড ইংল্যান্ড লায়ন্স আউট অব দ্য ওয়ার্ল্ডকাপ’। একই ইংল্যান্ড এখন বাংলাদেশ, বিশ্বকাপে হারের বদলা নিতে মুখিয়ে 05-10-16-one-day-series-tro-756x525দলটি কালই মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নামবে বেলা আড়াইটায়। কালকের ম্যাচে নাসির একাদশে থাকবেন কিনা সেটা সময়ই বলে দেবে। তবে টানা জয়ের মধ্যে থাকা বাংলাদেশ এখন অনেক পরিণত দল। প্রস্তুতি ম্যাচেই সেটা টের পেয়েছে ইংলিশরা। যে কারণে ইংল্যান্ডের পত্রিকায় বাংলাদেশকে নিয়ে সতর্কতা। অনেকগুলো পত্রিকায় শিরোনাম ছিল এমন, দ্বিতীয় একাদশ যদি ৩০০ ছাড়িয়ে যায় তাহলে টাইগারদের মূল একাদশ তো বড়ই বিপদে ফেলতে পারে। তাদের যতো ভয় তামিম ইকবাল, তাসকিন আহমেদ আর মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে নিয়ে। তারা হয়তো ভুলে বসে আছেন, বাংলাদেশ ক্রিকেটের পোস্টার বয় সাকিব আল হাসান কিংবা ওয়ান ডাউনে সাব্বির রহমানের কথা। সেই সাব্বির গতকাল বলেন, ‘বিশ্বকাপের ওদের আমরা হারিয়েছি, এর আত্মবিশ্বাস আমাদের মধ্যে অবশ্যই আছে। প্রথম ম্যাচটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। যদি আমরা ভালো খেলি, ইনশাল্লহ সিরিজ জিততে পারব।’
    মাঝখানে ট্রফি, দুই পাশে হাস্যোজ্জ্বল দুই অধিনায়ক। প্রতিটি সিরিজের আগে নিয়মিত ছবি এটি। এবারও থাকছে ট্রফির ছবি। তবে বদলে গেছে ট্রফির দু’পাশের মুখগুলো। দুই অধিনায়কের বদলে এবার সেখানে স্পন্সরদের প্রতিনিধিরা!
    গতকাল দুপুরে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামের সংবাদ সম্মেলন কক্ষে উন্মোচিত হয় বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড ওয়ানডে ও টেস্ট সিরিজের ট্রফি। সবসময়ই ট্রফি উন্মোচনে দুই অধিনায়কের থাকার রীতি চলে আসছে বরাবরই। এবার দেখা গেল ব্যতিক্রম। বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরীর সঙ্গে থাকলেন স্পন্সর প্রতিষ্ঠানগুলোর দুই কর্তা। সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্ন হলো এটি নিয়ে। বিসিবি প্রধান নির্বাহীর ব্যাখ্যা, “ক্রিকেটারদের অ্যাভেইল্যাবেলিটির ব্যাপার আছে। আপনার জানেন, ইংল্যান্ড সিরিজের জন্য বাড়তি কিছু কাজ করতে হচ্ছে। সময়ের স্বল্পতা আছে। সব মিলিয়েই এবার এভাবে হলো। সামনে ক্রিকেটারদের দিয়েই হবে।” বিসিবি প্রধান নির্বাহীর ব্যাখ্যা জন্ম দিল নতুন প্রশ্নের। কাল শুরু ওয়ানডে সিরিজ, তার আগে আরও একদিন বাকি আছে। টেস্ট সিরিজ শুরুতে বাকি আরও দুই সপ্তাহ। সময়ের স্বল্পতার যুক্তি তাই ধোপে টেকে না। আজ মিরপুরে দুই দলেরই অনুশীলন আছে। দুই অধিনায়ককে নিয়ে মাঠেই ট্রফি উন্মোচন খুবই সম্ভব ছিল।
    এই প্রশ্নে বিসিবির প্রধান নির্বাহী শোনালেন নতুন যুক্তি, “আসলে স্পন্সরদের ব্যাপার আছে। তাদের কথা ভাবতে হয়। ভবিষ্যতে আমরা ক্রিকেটারদের নিয়েই করার চেষ্টা করব।”
    বিসিবির কর্মকা-ের যখন এই অবস্থা তখন মাঠে বাংলাদেশ দল স্বস্তির মেজাজে। কারণ ইনজুরি নিয়ে সংশয়ে থাকা বাংলাদেশ অধিনায়ক গতকাল তার ৩৩তম জন্মদিনের আনুষ্ঠানিকতা সেরে অনুশীলনে ফিরেছেন, করেছেন বোলিং অনুশীলনও।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here