শিক্ষার্থীর ওপর হামলার বিচারের দাবিতে চুয়েটে ক্লাশ পরীক্ষা বর্জন

    0
    14

    রাউজানটাইমস ডেস্ক :-

    চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) কম্পিউটারকৌশল বিভাগের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী মুক্তাদির শাওনের ওপর সন্ত্রাসী হামলার বিচার দাবিতে বন্ধ রয়েছে চুয়েটের স্নাতক পর্যায়ের সকল শিক্ষা কার্যক্রম। আজ (১৮ অক্টোবর) মঙ্গলবার শিক্ষার্থীরা কাশ পরীক্ষা বর্জন করে বিচারের দাবিতে কর্মসূচি পালন করে।
    সকাল ৮টা থেকে শিক্ষার্থীরা কাশ পরীক্ষা বর্জন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলচত্বরে তাদের অবস্থান কর্মসূচি শুরু করে। এসময় তারা শাওনের ওপর সন্ত্রাসী হামলাকারী শিক্ষার্থীদের বিচারের দাবিতে শ্লোগান দেয় ও দোষীদের আজীবন ছাত্রত্ব বাতিলের দাবি জানায়। পরে বেলা এগারোটার দিকে শিক্ষার্থীরা দাবি নিয়ে উপাচার্যের দপ্তরের সামনে অবস্থান নেয়। তবে এসময় উপাচার্য মোহাম্মদ রফিকুল আলমের সাথে সাক্ষাত হওয়ায় শিক্ষার্থীরা কর্মসূচি স্থগিত করে ফিরে যায়।
    পরে বেলা ৩টার দিকে শিক্ষার্থীরা তাদের দাবি নিয়ে উপাচার্যের সাথে এক আলোচনায় বসেন। এসময় উপাচার্য শিক্ষার্থীদের দ্রুত বিচারের আশ্বাস দেন। শিক্ষার্থীরা জানান তারা নিজেদের মধ্যে এক সভায় কাশ বর্জন কর্মসূচির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিবেন।
    উল্লেখ্য, গত ২৭ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা সাতটায় হামলাকরীরা মুক্তাদির শাওনকে চুয়েটের ড. কুদরাত্ ই খোদা হল থেকে সিএনজি যোগে পাশ্ববর্তী ইমাম গাজ্জ্বালী ডিগ্্ির কলেজের মাঠে নিয়ে গিয়ে পাশবিক নির্যাতন চালায়। পরবর্তীতে মারাত্বকভাবে যখম অবস্থায় চুয়েট মেডিকেল সেন্টারের সামনে শাওনকে রেখে পালিয়ে যায় তারা। তৎক্ষণাৎ অ্যাম্বুলেন্স করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয় হয়। কিন্তু পরের দিন সকালে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় চট্টগ্রাম মডিকেল সেন্টারের আই.সি.ইউতে সরিয়ে নেয়া হয়।কিন্তু কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে দ্রƒুত উন্নততর চিকিৎসার জন্য ঢাকার অ্যাপলো হাসপাতালে স্থানতরের পরার্মশ দেন। একটি এয়ার অ্যাম্বুলেন্স হেলিকাপ্টারে করে শাওনকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। এখন শাওন বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হাসপাতালে আই.সি.ইউ ইউনিটে ভর্তি আছে। ঘটনার বিশ  দিন পরেও শাওন সম্পূর্ণ জ্ঞান ফিরে পায়নি ।এ ঘটনার প্রেক্ষিতে চুয়েট প্রশাসন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here