পটিয়ায় কোন রাজাকার, যুদ্ধাপরাধী ও জঙ্গিবাদীর ঠাঁই হবে না : সামশুল হক চৌধুরী এমপি

    0
    4

    ৩মে মুজাফরাবাদ গণহত্যা দিবস ঊপলক্ষে গতকাল সারদিন ব্যাপী নানান কর্মসূচী পালন করেছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবহী সংগঠন সমম্বয় ও মুজাফরাবাদ বধ্যভূমি সংরক্ষন পরিষদ। এতে বিকেল বেলার কর্মসূচীতে স্মৃতিচারণ সভায় টেলিফোনিক বক্তব্যে সাংসদ সামশুল হক চৌধুরী বলেন, পটিয়া বিপ্লবীদের গৌরবে গৌরবাম্বিত উপজেলা। বিপ্লবতীর্থ পটিয়ায় ত্যাগের মহিমায় উজ্জল জনপদ মুজাফরাবাদ। মহান মুক্তিযুদ্ধে এ গ্রামের অবদান, স্বাধীনতার ইতিহাসের অবিচ্ছেদ্য অংশ। আমাদের সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সরকার। দেশকে যুদ্ধাপরাধী ও জংগীবাদমুক্ত করার পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধেও সকল স্মৃতি চিহ্ন নতুনদের কাছে তুলে ধরতে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। আজকের দিনে আমি বলতে চাই, পটিয়ায় কোন রাজাকার, যুদ্ধাপরাধী ও জঙ্গিবাদীর ঠাঁই হবে না। উল্লেখ্য স্মরণ সভায় তিনি অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল ।চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপিকা ড. তাপসী রায় ঘোষের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্মরণ সভায় মানবতা বিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর মুক্তিযুদ্ধা এড. রানা দাশগুপ্ত বলেন, ৭১ এ আমরা রাজনৈতিক ও ভৌগলিক স্বাধীনতা লাভ করেছি। এ স্বাধীনতা লাভের গৌরব অনন্য । এটি অর্জন করতে হয়েছে যুদ্ধ করে। ত্রিশ লাখ শহীদ আর তিন লক্ষ মা বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে আমাদের স্বাধীনতা বলা হলেও ট্রাইব্যুনালের কাজ করতে গিয়ে ৪ লাখেরও অধিক মা বোনের যুদ্ধপরবর্তী সংক্ষিপ্ত সময়ে গর্ভপাতের তথ্য আমরা পেয়েছি। এত ত্যাগে আমরা একটি পতাকা ও ভূখন্ড পেলেও বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ এখনো প্রতিষ্ঠিত হয়নি। মুজিব নগর সরকারের ইস্তেহারে উল্লেখিত সাম্য ও সামাজিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হয়নি। বঙ্গবন্ধুর অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রনিক সমাজ ব্যাবস্থায় বাঙালির বাংলাদেশের পথে অনেক বাঁধা, ষড়যন্ত্র ঘরে বাইরে। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার সরকার যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করছে। এ কাজ সহজ ছিলনা, শেখ হাসিনাকে অনেক চাপ নিতে হয়েছে। তাঁর দৃঢ়তা ছিল বলেই তা সম্ভব হয়েছে এবং হচ্ছে। যতদিন পর্যন্ত একজন যুদ্ধাপরাধীও এদেশে থাকবে, ট্রাইব্যুনালের বিচার প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে । বেগম মুশতারী শফি বলেন, বঙ্গবন্ধু ঘোষিত সংগ্রামের স্বাধীনতা পেয়েছি, মুক্তি পাইনি এখনও। স্বাধীন দেশে এখনো নারীরা প্রতিনিয়ত নির্যাতিত হচ্ছে, খুন হচ্ছে মানুষ, নিরাপদে চলতে পারিনা। সংখ্যালঘুরা সন্ত্রস্ত থাকে, নিরাপত্তা নেই। মুক্তির সংগ্রামের জন্য আবারো ঐক্যবদ্ধ হোন, প্রস্তুতি নিন। সভায় সংবর্ধেয় অতিথি ছিলেন চ্যানেল আই’র চট্টগ্রাম ব্যুরো চীফ চৌধুরী ফরিদ, বিশেষ অতিথি চেয়ারম্যান মাহাবুবুর রহমান, হিবৌখ্রী ঐক্য পরিষদ নেতা দিলিপ ভট্টাচার্য, শ্যামল চৌধুরী, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আবদুল হান্নান লিটন। শিক্ষক সুমন চক্রবর্ত্তীর সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সমম্বয় সভাপতি বিপ্লব সেন, সাবেক সভাপতি প্রদীপ কর, প্রদীপ ঘোষ, প্রকাশ ঘোষ পিকলু, সমম্বয় সম্পাদক কাজল কর, রূপায়ন বিশ্বাস, গণহত্যা দিবস স্মরণ পরিষদ সচিব নবারুন বিশ্বাস প্রমূখ।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here