নোয়াপাড়া, উরকিরচর ও পশ্চিম গুজরাসহ রাউজানে জোয়ারের পানিতে প্লাবিত অর্ধশত গ্রাম

    0
    3

    অনিক সিদ্দিকী, রাউজানটাইমস :-

    রাউজানে অবিরাম বর্ষণের ফলে পাহাড়ী ঢল আর জোয়ারের পানি বান্দি হয়ে পড়েছে কর্ণফুলী ও হালদা পাড়ের প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রামের ২০ হাজার বাসিন্দা। বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থা, শিার্থী যেতে পারছে না শিাঙ্গণে, স্থবির হয়ে পড়েছে ব্যবসা-বাণিজ্য, বসছেনা হাট-বাজার। কাজকর্ম বন্ধ থাকায় মানবেতর জীবন পার করছে দিনমজুররা। রাস্তাঘাটে জলবদ্ধতার করণে চলাচল করছে না এই অঞ্চলের প্রধান যানবহন রিক্সা, সিএনজি চালিত অটোরিক্সা। তালিয়ে গেছে সদ্য রোপন করা আমনের বীজতলা।
    গত বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে  রোববার এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ভারি বৃষ্টিপাতে উপজেলার নোয়াপাড়া ইউনিয়নের উভলং, চৌধুরীঘাটকুল, দণি নোয়াপাড়া, কচুখাইন, ছামিদর কোয়াং, সামমাহালদার পাড়া, মোকামীপাড়া, পশ্চিম নোয়াপাড়া, উরকিরচর ইউনিয়নের মইশকরম, আবুরখিল, মীরাপাড়া, পশ্চিম গুজরা ইউনিয়নের কাগতিয়া কাসেম নগর, বাগোয়ান ইউনিয়নের পাঁচখাইন, কোয়েপাড়াসহ অন্তত ৫০ টি গ্রাম পাহাড়ী ঢল ও জোয়ারের পানিতে ডুবে গেছে। এদিকে অবিরাম বর্ষণে সর্তা ও ডাবুয়া খালের পানিও বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে গহিরা, নোয়াজিষপুর, পশ্চিম ডাবুয়া, হলদিয়া ও চিকদাইর ইউনিয়নে রাস্তাঘাট ঘরবাড়ী ডুবে গেছে।


    রোববার সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, হালদা নদীর জোয়ারে নোয়াপাড়া ইউনিয়নের সামমাহালদার পাড়া, পশ্চিম নোয়াপাড়া, মোকামী পাড়া ও কচুখাইনের শতাধিক বাড়ী ঘরে হাটু সমান পানি উঠেছে।
    সামমাহালদার পাড়ার বাসিন্দা রমিজা খাতুন বলেন, ঘরের ভিতর হাটু সমান পানি উঠে যাওয়ায় দুপুরের রান্না করা হয়নি। বাইরেও কোমর সমান পানি জমে থাকায় ঘর থেকে বের হতে পারছিনা। তাই দুপুরে খাওয়ায় হয়নি।
    হালদা পাড়ের উরকিরচর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান সৈয়দ আব্দুল জব্বার সোহেল বলেন, টানা বর্ষণ হলেই আমার ইউনিয়নের অনেক গ্রাম জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়ে যায়। জোয়ারের পানির স্রোতে গ্রামিণ রাস্তাঘাট ভেঙে পড়ে। গত বৃহস্পতিবার থেকে এ ইউনিয়নে ৭টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। অনেক বাড়ী ঘরে পানি ঢুকে পড়ায় জনজীবনে ভোগান্তি নেমে আসে।
    উপজেলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম হোসেন বলেন, টানা বর্ষণের ফলে শনিবারও কর্ণফুলী, হালদা নদী, সর্তা ও ডাবুয়া খালের তীরবর্তী প্রায় অর্ধশত গ্রাম পানিতে ডুবে আছে। সরেজমিন নোয়াপাড়া, পুশ্চিম গুজরা ইউনিয়নের অনেক প্লাবিত গ্রাম ঘুরে দেখেছি। তিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

     

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here