প্রবাসী কল্যান মন্ত্রী’র সহকারি একান্ত সচিব, সংগঠক নিয়াজ মোরশেদ নিরু’র পিতার কূলখানি বাদে জুমা (শুক্রবার)।

    0
    7

    নেজাম উদ্দিন রানা:
    প্রবাসী কল্যান ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি’র সহকারি একান্ত সচিব, সংগঠক নিয়াজ মোরশেদ নিরু’র পিতা,বিশিষ্ট সমাজসেবক, শিক্ষানুরাগী, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের সাবেক কর্মকর্তা, বিনাজুরী নবীন স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি এ. কে জাফর খানের কূলখানি আগামীকাল(শুক্রবার)নিজ বাড়ি কাগতিয়ার মজিদা পাড়ায় অনুষ্টিত হবে। এ উপলক্ষে মরহুম এ,কে জাফর খানের রুহের মাগফেরাত কামনায় খতমে কোরআন,দোয়া মাহফিল ও ফাতেহা উপলক্ষে মেজবানের আয়োজন করেছে মরহুমের পরিবারবর্গ।
    মরহুম এ,কে জাফর খানের সুযোগ্য পুত্র,প্রবাসী কল্যান ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি’র সহকারী একান্ত সচিব, সংগঠক নিয়াজ মোরশেদ নিরু তার পিতার আত্নার মাগফেরাত কামনায় দোয়া মাহফিল ও মেজবানে সকলের উপস্থিতি কামনা করেছেন।
    উল্লেখ্য গত ৫ অক্টোবর রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় না ফেরার দেশে পাড়ি জমান তিনি। ৬ অক্টোবর রোজ শুক্রবার বাদে আছর কাগতিয়া এশাতুল উলুম কামিল (এম.এ) মাদ্রাসা ময়দানে বিপুল সংখ্যক মুসল্লিদের উপস্থিতিতে মরহুমের নামাজে জানাজা শেষে তাকে কাগতিয়ার মজিদা পাড়াস্থ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় । উল্লেখ্য কাগতিয়া গ্রামের কৃতি সন্তান এ.কে জাফর খান ১৯৫১ সালে রাউজানের পশ্চিম গুজরা ইউনিয়নের কাগতিয়া মজিদা পাড়ার এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি শিক্ষাবিদ,মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক মরহুম সিরাজুল হক মাস্টারের দ্বিতীয় পুত্র এবং পরিবার কল্যাণ অধিদপ্তরের সাবেক উপ-পরিচালক মরহুম এ.কে আহমদ ছগিরের ছোট ভাই।

    প্রবাসী কল্যান ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি’র সহকারি একান্ত সচিব, সংগঠক নিয়াজ মোরশেদ নিরু’র পিতা। এ.কে জাফর খান বিনাজুরী নবীন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস.এস.সি, রাউজান কলেজ থেকে এইচ এস সি, সরকারি সিটি কলেজ থেকে বি. কম পাশ করে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন -এ যোগ দেন। ২০০৮ সালে চাকুরি থেকে অবসর গ্রহণের পর সমাজসেবামূলক কাজে আত্ননিয়োগ করেন পাশাপাশি এলাকার শিক্ষা বিস্তারে অবদান রাখেন। চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের ২৩ জানুয়ারী ২০১৭ তারিখে-চশিবো/ক-শা/চট্ট(উঃ)/৩৯৭/২০১৩/ নং স্মারকমূলে এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে এ.কে জাফর খানকে বিনাজুরী নবীন স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালনা কমিটির সভাপতি হিসেবে অনুমোদন দেওয়া হয়। ৩১ জানুয়ারী সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর শিক্ষা প্রতিষ্টানের উন্নয়নে ব্যাপক অবদান রাখেন তিনি। মুত্যুর পূর্ব পর্যন্ত তিনি শিক্ষা প্রতিষ্টানটির অগ্রযাত্রায় অসামান্য অবদান রেখে যান।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here