Thursday, June 13, 2024
spot_img
Homeচটগ্রাম মহানগরচট্টগ্রাম-৬ থেকে আবারও নৌকার প্রার্থী এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী

চট্টগ্রাম-৬ থেকে আবারও নৌকার প্রার্থী এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী

Spread the love

সোহেল রানা । রাউজানটাইমস :

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-৬ সংসদীয় আসন থেকে আবারও নৌকার টিকিট পেলেন টানা চারবারের সংসদ সদস্য এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী । এবার নিয়ে ৭ম বারের মতো নৌকার মনোনয়ন পেলেন রেলপথ মন্ত্রনালয় সর্ম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ি কমিটির সভাপতি ফজলে করিম চৌধুরী এমপি।

২৬ নভেম্বর রোববার বিকেলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ৩০০ সংসদীয় আসনে দল মনোনীত প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছেন। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে অবস্থিত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিকেল সোয়া ৪টার দিকে নাম ঘোষণা শুরু করেন তিনি। এদিকে দুপুর থেকেই রাউজানে সকল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের স্থায়ী কার্যালয়ের সামনে জড়ো সরকারদলীয় নেতাকর্মীরা। বিকেল সোয়া ৪টার দিকে এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীর নাম ঘোষণার পর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে নৌকা প্রতিক নিয়ে আনন্দ মিছিল বের করে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, ১৯৭৩ সালের পর সংসদীয় এই আসনটি আওয়ামী লীগের হাতছাড়া হয়ে পড়ে। ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত আসনটি অধিকাংশ সময় সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও তার ভাই গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর হাতেই ছিল। ২০০১ সালের আওয়ামী লীগ নির্বাচনে ফজলে করিম চৌধুরীর হাত ধরে আসনটি পুনরুদ্ধার করে আওয়ামী লীগ। সেই থেকে এই পর্যন্ত আসনটি আওয়ামী লীগের হয়ে ধরে রেখেছেন। এ উপজেলাকে গড়ে তোলেছেন আওয়ামী লীগের দুর্গ হিসেবে। দলীয় নেতাকর্মীরা মনে করেন ‘নির্বাচনী মাঠে আওয়ামী লীগের ফজলে করিমের সাথে ‘ঠেক্কা’ দেয়ার মতো কেউ নেই। তিনি দলের ব্যতিক্রম, সৃষ্টিশীল, দক্ষ রাজনীতিবিদ।’

এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী ১৯৯৬ সাথে প্রথম আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচন করে বিএনপির প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর কাছে পরাজিত হন। ২০০১ সালে দ্বিতীয় বার মনোনয়ন পেয়ে বিএনপির প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীকে পরাজিত করে প্রথম বারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর ২০০৮ সালে পুনরায় বিএনপির একই প্রার্থীকে পরাজিত করেন। সর্বশেষ ২০১৪ বিরোধীদলগুলি সাধারণ নির্বাচন বর্জন করে তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিলে তিনি পুনরায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। সর্বশেষ ২০১৮ সালের একাদশতম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয় লাভ করে চতুর্থ বারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

গত ১৫ নভেম্বর প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল তপশিল ঘোষণা করেন। তপশিল অনুযায়ী, ২০২৪ সালের ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ সাধারণ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

 

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments