চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে উরকিরচর সড়ক : মহিউদ্দিন ইমন

0
70

দেশের শ্রেষ্ট মৎস প্রজননক্ষেত্র বলে খ্যাত হালদা নদীর পাশে ছায়া সুনিবিড়,শান্তির নীড় রাউজান উপজেলার উরকিরচর গ্রাম। গ্রামের মানুষ গুলে সবাই প্রায় সুশিক্ষিত, সহজ,সরল।

বিচারপতি, ডাক্তার,ইন্জিনিয়ার,আইনজীবী,,রাজনীতিবিদ, জনপ্রতিনিধি, সরকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা,কবি,সাহিত্যিক, শিক্ষক,সাংবাদিক, শিল্পী সহ অনেক প্রথিতযশা মানুষ জন্ম গ্রহন করেছে এ গ্রামে।এখানে একটি উচ্চ বিদ্যালয়,৩ টি মাদ্রাসা,২ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়,৩ টি কিন্ডারগার্টেন স্কুল,মসজিদ,মাজার, সামাজিক সংগঠন রয়েছে।

মেধা ও মননে,চিন্তা ও চেতনে, একতা,ভ্রাতৃত্ব,সম্প্রীতি,শিক্ষা, হও, প্রগতিতে সমুজ্জল উরকিরচর কে আদর্শ গ্রাম বলা যেতে পারে। এ গ্রামের একমাত্র সড়ক উরকিরচর সড়ক।ব্যস্ততম এ সড়কের উপর দিয়ে প্রতিদিন মঈশকরম,সওদাগর পাড়া, সুজার পাড়া,লালমিয়া শাহ পাড়া, উত্তর উরকিরচর, বাড়িয়াঘোনা, খলিফারঘোনা, পশ্চিম আবুরখীল সহ হাজার হাজার মানুষের যাতায়াত করে।প্রতি বছর বর্ষার মৌসুমে হালদা নদীর অত্যধিক জোয়ারে সড়কের প্রায় অংশে হাঁটু পরিমান পানি উঠে। এতে যান চলাচল বন্ধ থাকে।এবার ঘূর্ণিঝড় ইয়াশ এর কারনে অত্যধিক পানি হওয়ায় পুরো সড়কি পানির নীচে টি তলিয়ে যায়। ফলে সড়কের প্রায় অংশ ভেঙেচুরে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সড়ক নয় মনে হয় এক একটা মিনি পুকুর। বর্তমানে সড়ক টি চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে।তীব্র ঝাঁকুনীতে প্রচন্ড ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়ত অসহায় হয়ে মানুষ চলাচল করছে।বিশেষ করে বৃদ্ধ ও রোগীদের চলাচল কঠিন হয়ে পড়েছে।

অতীতে স্থানীয় সামাজিক সংগঠন উরকিরচর জনতা সংঘের উদ্যোগে সমাজ সেবক, দানবীর মরহুম আলহাজ্ব এস এম ইউছুপ সি আই পি, প্রবাসী মঞ্জুরুল আলম,ইন্জিনিয়ার জয়নাল আবেদীন সহ প্রবাসী ও এলাকাবাসীর আর্থীক সহযোগীতায় সড়কটি প্রশস্ত ও সংষ্কার করা হয়।

রাউজানে মাননীয় সংসদ সদস্য জননেতা এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরীর প্রচেষ্টা ও আন্তরিকতায় এ সড়কের জন্য বিভিন্ন সময়ে প্রায় ৩ কোটি টাকার কাজ করা হয়।কিন্ত গ্রামটি জনবসতিপূর্ণ ও অধিক যানবাহন যাতায়াত করায় এবং প্রতিবছর পার্শ্ববতী হালদা নদীর অত্যধিক জোয়ারের পানিতে তলিয়ে বার বার সড়ক টি নষ্ট হয়।চোখে না দেখলে বুঝা যাবে না যোগাযোগের একমাত্র ব্যস্ততম এ সড়কটির বর্তমান অবস্থা কতটা নাজুক হয়েছে।

স্থানীয় উরকিরচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ আবদুল জব্বার সোহেল এর সাথে কথা বলে জানা যায় সড়কের অবস্থা চিন্তা করে বহুদিন আগে হতে বরাদ্দের চেষ্টা করা হচ্ছে কিন্ত বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস সংক্রমণের প্রাদুর্ভাব এর ফলে কিছুটা বিলম্বিত হয়েছে। এ বছরের শেষে দিকে সড়কের টেন্ডার হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।তিনি ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ হতে আপাতত চলাচল উপযোগী করতে আর্থিক সহযোগিতা প্রদানের প্রতিশ্রতি ব্যক্ত করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here